শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৯ আষাঢ়, ১৪৩১

শীতে চুলের বিশেষ যত্ন

editor
নভেম্বর ২৫, ২০১৭ ১০:৩৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

লাইফস্টাইল ডেস্ক : শীত চলে এসেছে। চুলের যতেœ নতুন যুদ্ধ শুরু। এই শীতে আপনার চুলের বিশেষ যত্ন নিতে প্রস্তুত তো আপনি।
শীতের কথা বলতে প্রথমেই মনে হয় এক কাপ গরম কফিতে সকাল দেখা আর বাতাসে শুষ্ক চুল উড়া। শীতে যেখানে পানির কাছে যেতে ইচ্ছাই করে না, সেখানে শুষ্ক চুলের যত্ন নেওয়াটা খুব কষ্টের হয়ে দাঁড়ায়।
শীতে যাতে চুল শুষ্ক বা রুক্ষ হয়ে না যায় তার জন্য দরকার চুলের বিশেষ যত্ন। চুলে পর্যাপ্ত পরিমাণে ময়েশ্চার পৌঁছালে চুল ভাঙে কম। জেনে নিন, শীতে চুলের যত্ন কিছু টিপস।
মাথার ত্বকের সঙ্গে যুদ্ধ : মাথার ত্বক সবচেয়ে শুষ্ক হয়ে থাকে। আর এই শীতে মাথার ত্বকের বড় সমস্যা হল খুশকি। তবে অনেকেই এই সহজ কথাটা বুঝতে চান না যে, ঠিক ভাবে যত্ন নিলে খুশকি প্রতিরোধ করা যায়। মাথার ত্বককে খুশকি থেকে বাঁচাতে চাইলে এক টেবিল চামচ নারকেল তেল এবং এক চা-চামচ লেবুর রস কার্যকরী। তেল হালকা গরম করে নিয়ে তাতে লেবুর রস ভালো করে মেশাতে হবে। তারপর মাথায় ভালো করে ম্যাসাজ করে প্রায় ২০-৩০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।
কোঁকড়ানো চুল নিয়ন্ত্রণ : শীতের আরেকটি বিরক্তিকর ব্যাপার হল, চুল জড়ানো। শীতের কাপড়, হুডি, মাফলার এসবের সঙ্গে যেন চুলের খেলার শেষ নেই। আর ফলাফল চুলে গিট লেগে কুঁকড়ে থাকা। এর জন্য ছড়ানো ধরনের চিরুনি ব্যবহার করা উচিত। অবশ্যই চুল ন্যারিশ করার জন্য প্রাকৃতিক তেল ব্যবহার করুন। চুল বেশি কুঁকড়ে গেলে বা জড়িয়ে থাকলে হালকা গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে কন্ডিশনার ব্যবহার করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন পানি একেবারে হালকা গরম ব্যবহার করতে হবে।
চুলে উজ্জ্বল এবং বাউন্স ভাব : শীতে চুল বেশি রুক্ষ হয়ে যায়। এর জন্য চুলে মধু ব্যবহার করতে পারেন। সঙ্গে চুল খেলানোর জন্য বড় দাঁত ওয়ালা কাঠের চিরুনি বেশ কাজে দেবে। চুলে মধু লাগিয়ে প্রায় ২০-৩০ মিনিট কোনো তোয়ালে বা হেয়ার ক্যাপ দিয়ে চুল বেঁধে রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে পারেন। মধু চুলে ময়েশ্চার ধরে রাখতে সাহায্য করে।
চুলের স্বাস্থ্যে অলিভ অয়েল : প্রাকৃতিক তেলের মধ্যে অলিভ অয়েল অন্যতম। মাথার প্রায় সব ধরনের সমস্যার সমাধান রয়েছে এই তেলে। দুই চা-চামচ অলিভ অয়েল হালকা গরম করে মাথায় ম্যাসাজ করুন। ২০-৩০ মিনিট রেখে দিয়ে হালকা গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার দিতে ভুলবেন না। এতে করে চুল বেশ ঝরঝরে হয়ে যাবে।
চুল শুকানো : শীতের দিনে ভেজা চুলে বেশিক্ষণ থাকা সম্ভব হয় না, তাতে করে বেশি ঠান্ডা লাগে। আমাদের বেশিরভাগই গোসলের পর পরই হেয়ার ড্রায়ার দিয়ে চুল শুকিয়ে ফেলেন। তবে খেয়াল রাখবেন শীতের দিনে চুল পাতলা এবং শুষ্ক হয়ে থাকার কারণে তা ভাঙার প্রবণতাও বেশি থাকে। তাই সময় নিয়ে ঠিক ভাবে চুল শুকান।
হেরায় কন্ডিশনিং : চুলের পর্যাপ্ত ময়েশ্চারের জন্য কন্ডিশনিং করা দরকার। তবে তা ঠিক ভাবে করছেন তো? তেলের ম্যাসাজ এবং গভীর কন্ডিশনিং অন্তত সপ্তাহে একবার হলেও দেওয়ার চেষ্টা করবেন। মনে রাখবেন কন্ডিশনার শুধুমাত্র চুলের নিচের অংশে ব্যবহারের জন্য। কখনোই কন্ডিশনার মাথার ত্বকে লাগাবেন না। চুলে কন্ডিশনার লাগিয়ে অন্তত ২ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
টিপসগুলো মেনে চলুন। তাহলে আশা করা যায় এই বারের শীতে আপনাকে আপনার চুল নিয়ে খুব বেশি সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না। তথ্যসূত্র : স্টাইল ক্রেজ

Please follow and like us:

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial