Tuesday , 14 August 2018
আপডেট
Home » আন্তর্জাতিক » মহাকাশে বিলাসবহুল হোটেল!
মহাকাশে বিলাসবহুল হোটেল!
মহাকাশে বিলাসবহুল হোটেল!

মহাকাশে বিলাসবহুল হোটেল!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: একদিনে ১৬ বার সূর্যোদয় দেখতে চান? ভাসতে চান জিরো গ্র্যাভিটিতে? মহাকাশ থেকে পৃথিবী নামক গ্রহটিকে দেখতে চান? আপনার সেই স্বপ্নকে সফল করার জন্য আসছে ‘অরোরা স্টেশন’ নামে একটি বিলাসবহুল মহাকাশ স্টেশন। চার বছরের মধ্যেই আপনি মহাকাশ ভ্রমণে যেতে পারবেন। খবর সিএনএনে।
বৃহস্পতিবার ক্যালিফোর্নিয়ার সান জোসেতে অনুষ্ঠিত স্পেস ২.০ সামিটে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক অরিয়ন স্প্যান নামে একটি মহাকাশ প্রযুক্তি স্টার্টআপ এ ঘোষণা দিয়েছে। দু’জন ক্রু মেম্বার ও চারজন অতিথিসহ ছয়জন থাকতে পারবেন হোটেলটিতে। মহাকাশ ভ্রমণের এ ট্রিপে প্রথম অতিথি নেয়া হবে ২০২২ সালে।
অরিয়ন স্প্যানের প্রধান নির্বাহী ফ্র্যাংক বাংগার বলেন, প্রতিষ্ঠানটির লক্ষ্য মহাকাশ ভ্রমণকে যথাসম্ভব সহজসাধ্য করা। আর আমরাই প্রথম মহাকাশে সাশ্রয়ী মূল্যের বিলাসবহুল হোটেল উৎক্ষেপণ করতে চলেছি।
সাশ্রয়ী মূল্য শুনে ভাবছেন আপনিও যাবেন? তাহলে শুনুন। হোটেলটিতে থাকতে চাইলে ১২ দিনের প্যাকেজ ট্যুরে পর্যটকদের গুনতে হবে প্রায় সাড়ে ৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (প্রায় ৮০ কোটি টাকা)। টাকা দিলেন আর মহাকাশে চলে গেলেন, তা হবে না।
এই ট্রিপে অংশ নিতে হলে আপনাকে তিন মাসব্যাপী অরিয়ন স্প্যান অ্যাস্ট্রোনট সার্টিফিকেশন প্রোগ্রামে অংশ নিতে হবে। এই ১২ দিনের সফরে থাকবে পৃথিবীর উপরিভাগের ২০০ মাইল উপরে ওড়ার সুযোগ। এর মাধ্যমে নীল গ্রহটির অসামান্য রূপ দেখার বিরল অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে পারবেন।
হোটেলটি দেড় ঘণ্টা পর পর প্রথিবী প্রদক্ষিণ করবে। তার মানে ২৪ ঘণ্টায় আপনি ১৬ বার সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত দেখতে পাবেন। হোটেলটিতে থাকার সময় অতিথিরা মহাকাশে পরীক্ষামূলকভাবে খাদ্য উৎপাদন করার সুযোগ পাবেন। সেটি আবার স্মৃতি হিসেবে নিজের সঙ্গে পৃথিবীতেও নিয়ে আসতে পারবেন। তার মানে হল, আপনি মহাকাশে কোনো চারা রোপণ করে সেটা পৃথিবীতে পুনরায় লাগাতে পারবেন।
এছাড়াও এই ১২ দিনে অতিথিরা উচ্চগতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে নিজেদের প্রিয়জনের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন। হোটেলটিতে পর্যটকরা চাইলে জিরো গ্র্যাভিটিতে ভাসার পাশাপাশি হোটেলের জানালা দিয়ে উত্তর ও দক্ষিণ অরোরা দেখতে পারবেন। হোটেলটিতে ট্রিপের জন্য বুকিং মানি হিসেবে নেয়া হচ্ছে আশি হাজার মার্কিন ডলার। প্রযুক্তিগত খরচে মহাকাশ ভ্রমণ এর আগেও হয়েছে। ২০০১ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ব্যক্তিগত উদ্যোগে সাতজন ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশনে ভ্রমণ করেন। তাদের প্রত্যেকের জন্য খরচ পড়েছে ২০ থেকে ৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। সে তুলনায় অরিয়ন স্প্যানের ট্যুর প্যাকেজকে বেশ সাশ্রয়ীই বলে মনে করেন অনেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*